image

আজ, মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৯ ইং

ইয়েমেন লড়াই: সৌদি অভিযানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে মার্কিন সেনেট

ডেস্ক    |    ২১:০৬, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনেট ইয়েমেনে সৌদি আরবের অভিযান থেকে মার্কিন সামরিক সাহায্য প্রত্যাহার করে নেয়ার পক্ষে এক প্রস্তাবে ভোট দিয়েছে।

মার্কিন সেনেট একই সঙ্গে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগজির হত্যার জন্য সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে দায়ী করে আরেকটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে এই প্রথমবারের মতো ১৯৭৩ সামরিক শক্তি বিষয়ক আইন ব্যবহার করে ইয়েমেনে সৌদি অভিযানের ওপর সেনেটে ভোট গ্রহণ করা হলো।

এই ভোটে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কিছু সতীর্থ রিপাবলিকান দলীয় অবস্থানের বিরুদ্ধে গিয়ে ডেমোক্র্যাটদের সাথে যোগ দেন।

তবে এই প্রস্তাবকে মূলত প্রতীকী হিসেবে দেখা হচ্ছে এবং এটা আইন হিসেবে গৃহীত হবে এমন সম্ভাবনাও কম।

ইয়েমেনে যুদ্ধের জন্য যুক্তরাষ্ট্র গত মাস থেকেই সৌদি যুদ্ধবিমানগুলিতে তেল সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে।

যুবরাজ মোহাম্মদের প্রশ্নে মার্কিন সেনেটের সিদ্ধান্ত ছিল সর্বসম্মত।

সেনেটের এই প্রস্তাবে জোর দিয়ে বলা হয়েছে, ক্ষমতাধর পত্রিকা ওয়াশিংটন পোস্টের কলাম লেখক জামাল খাসোগজির হত্যার জন্য যেসব সৌদি দায়ী তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

ভার্মন্টের স্বতন্ত্র সেনেটর বার্নি স্যান্ডার্স এই প্রস্তাবের উপস্থাপকদের একজন।

ইয়েমেনের যুদ্ধের ব্যাপারে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, "আজ সৌদি আরবের স্বৈরশাসকদের প্রতি আমরা বলেছি যে আমরা তাদের সামরিক অ্যাডভেঞ্চারের অংশ হতে চাই না।"

জামাল খাসোগজির হত্যায় সৌদি যুবরাজের সংশ্লিষ্টতার ব্যাপারে রিপাবলিকান সেনেটর বব কর্কার বলেন, "আজ যদি কোন জুরির সামনে যুবরাজের বিচার হতো তাহলে আমার ধারণা ৩০ মিনিটের মুখে তিনি দোষী প্রমাণিত হতেন।"

বিবিসির সংবাদদাতা বারবারা প্লেট আশার বলছেন, এই দুটি প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে এই বার্তাই দেয়া হয়েছে যে বেশিরভাগ সেনেটর মনে করেন সৌদি আরবের সাথে বর্তমান সম্পর্ক এভাবে চলতে পারে না।

সৌদি আরবের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের কৌশলগত সম্পর্ককে তারা মূল্য দেয় ঠিকই, কিন্তু যুবরাজ মুহাম্মদের নেতৃত্বের প্রশ্নে তারা প্রচণ্ড অস্বস্তির মধ্যে রয়েছেন।

যুবরাজের বিদেশি অভিযান বিশেষভাবে ইয়েমেনের যুদ্ধে মানুষের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে তাদের মধ্যে উদ্বেগ বাড়ছে বলে বিবিসি সংবাদদাতা উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, পরিস্থিতি পাল্টে যায় যখন জামাল খাসোগজির নৃশংস হত্যার বিস্তারিত প্রকাশ হতে শুরু করে।

অনেক সেনেটর মনে করেন, সৌদি আরব এমন এক মিত্র-দেশ যে বিশ্বাস করে এ ধরনের কাজ করে সে সহজেই পার পেয়ে যাবে।

সৌদি আরবকে সমর্থন করে হোয়াইট হাউজ যে অবস্থান নিয়েছে, অনেক সেনেটর তাতে হতাশ।

সেনেটর বব কর্কার উল্লেখ করেন, মার্কিন সেনেটে দ্বিদলীয় কর্মকাণ্ডের মুলে রয়েছে এই ধারণা যে প্রশাসনের স্বার্থ এবং মার্কিন মূল্যবোধ রক্ষার মধ্যে ভারসাম্য বজায় থাকছে না।

খবর : বিবিসি বাংলা



image
image

রিলেটেড নিউজ

Los Angeles

২১:১৫, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮

আইসিসের থেকে হাজিন দখল করল সিরিয়ান সেনারা


image
image
image

আরও পড়ুন

Los Angeles

১২:৩২, জানুয়ারী ২২, ২০১৯

যাত্রাবাড়ীর মৃধাবাড়ীতে অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার


Los Angeles

০২:০৪, জানুয়ারী ২২, ২০১৯

চুনতি ব্লাড ব্যাংকের মতবিনিময় সভা