image

আজ, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯ ইং

চট্টগ্রামের খুলশীতে জেলা রেড ক্রিসেন্ট এর ঈদ বস্ত্র বিতরণ 

প্রতিবেদক    |    ০৩:০৬, জুন ৪, ২০১৯

image

চট্টগ্রামের খুলশী এলাকায় ২য় পর্যায়ে জেলা রেড ক্রিসেন্ট এর ঈদ বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে।ঈদ বস্ত্র বিতরণ করছেন সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম।

ঈদের আনন্দ সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের আয়োজনে যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে নগরীর খুলশি কলোনী বিহারীদের মাঝে এলাকায় তিন শতাধিক নিম্নবিত্ত পরিবারের নারী ও পুরুষের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম, বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য ফখরুল ইসলাম চৌধুরী পরাগ, চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য মহসিন উদ্দিন চৌধুরী ফয়সাল। আরও উপস্থিত ছিলেন হাসিনা বেগম। এতে সভাপতিত্ব করেন যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের যুবপ্রধান ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল। আরও উপস্থিত ছিলেন প্রচার-প্রকাশনা প্রধান মোঃ মঈনুল ইসলাম, স্বাস্থ্য বিভাগীয় উপ প্রধান মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, মুক্তদল সদস্য খোরশেদ আলম সুমন, নিজাম উদ্দিন, আবুল হাসান, আরিফুল ইসলাম, অর্পিতা চক্রবর্তী, তন্ময়, নূর ইসলাম, তাউসিফ, আয়শা ফেরদৌস রুমি, সঞ্জয় দত্ত প্রমুখ। 

অতিথিরা বলেন, রমজান আমাদের যে শিক্ষা দিয়েছে তথাপি ইসলাম আমাদের যে শিক্ষা দিয়েছে, আজ আমরা আমাদের সেই শিক্ষা ভুলতে বসেছি। আমরা ভুলে যাচ্ছি আমাদের উপর আমাদের পাশের গরিব অসহায় মানুষ গুলোর অধিকার রয়েছে। তাদেরও অধিকার আছে ঈদের আনন্দ উপভোগ করার। তাই রমজানের তাৎপর্য রক্ষায় জেলা ইউনিট মাসব্যাপী বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। ভিন্ন ভিন্ন এ আয়োজনকে সফল করার জন্য সমাজের সকল বিত্তবানদের আহবান জানান হয়।


চট্টগ্রামে জেলা রেড ক্রিসেন্ট এর ঈদ বস্ত্র বিতরণ


image
image

রিলেটেড নিউজ

image
image
image

আরও পড়ুন

Los Angeles

০১:৫১, আগস্ট ২৩, ২০১৯

পেকুয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে তিন সন্তানের জননীর আত্মহত্যা


Los Angeles

০১:৪৫, আগস্ট ২৩, ২০১৯

কুতুবদিয়ায় নবনিযুক্ত ইউএনও জিয়াউল হক মীর


Los Angeles

০১:৩১, আগস্ট ২৩, ২০১৯

ফের আটকে গেল রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কর্মসূচি : এনজিও’দের দূষছেন স্থানীয়রা