image

আজ, বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০ ইং

বন্যা শেষে পুনরায় শরৎকালীন সবজি চাষাবাদে ব্যস্ত শঙ্খচরের চাষীরা

মোঃ কামরুল ইসলাম মোস্তফা, চন্দনাইশ সংবাদদাতা    |    ১৪:৪৩, আগস্ট ৫, ২০১৯

image

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ ও সাতকানিয়া উপজেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত খরস্রোতা শঙ্খনদীর উভয় তীরের ১০ ইউনিয়নের প্রায় প্রায় ১০ হাজার কৃষকের জীবন-জীবিকা সবজি চাষের উপর নির্ভরশীল।

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সবজি ভান্ডার হিসেবে পরিচিত শঙ্খচরের উর্বর ভূমিতে চাষাবাদ করে পরিবার পরিজন নিয়ে দিনাতিপাত করেন তারা। কিন্তু গত ৬ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত টানা নয় দিনের অবিরাম বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের কারনে সৃষ্ট বন্যায় চাষীদের ফসলের ক্ষেত নষ্ট হয়ে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। বন্যার দুঃসহ স্মৃতি ভুলে ফের সবজি চাষাবাদের জন্য মাঠে নেমেছেন শঙ্খ চরের চাষীরা। 

সবজি ক্ষেতে কাজ করার সময় কথা হয় কৃষক আবু তাহের, শামছু মিয়া, নুরুল আলম বাচন, জসিম উদ্দীনের সাথে। তারা জানান, জুলাই মাসের বন্যায় তাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষেতের সবজি ক্ষেতেই পঁচে গেছে। এখন শরতকালীন সবজি চাষের উদ্দেশ্যে জমি প্রস্তুত করছেন তারা। 

চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী, ধোপাছড়ি, বৈলতলী, বরমা এবং সাতকানিয়া উপজেলার খাগরিয়া, কালিয়াইশ, পুরানগড়, ধর্মপুর, নলুয়া, চরতী ও আমিলাইশ ইউনিয়নের প্রায় ১০ হাজার কৃষক সবজি চাষের সাথে সরাসরি জড়িত।

তারা জানান, শঙ্খচরের মাটি উর্বর হওয়ায় এখানে সব ধরনের সবজি চাষ হয়। এই চরে উৎপাদিত বীষমুক্ত বেগুন ও মূলার আলাদা কদর রয়েছে সারা দেশব্যাপী। এছাড়া শিম, ঢেঁড়শ, করলা, চিচিঙ্গা, ঝিঙ্গা, তিত করলা, ফুলকপি, বাঁধাকপি, শসা, মিষ্টি কুমড়া, লাউ ও পেঁপে সহ বিভিন্ন ধরনের শাক উৎপাদন হয় এখানে। 

শঙ্খ চরে উৎপাদিত সবজি গুণেমানে ও স্বাদে ভালো হওয়ায় ভোজন রসিকদের কাছে এখানকার সবজির চাহিদা বেশি। কৃষকরা ভ্যান, রিক্সা, ট্রলি, নৌকা  ও ইঞ্জিন চালিত বোটে করে দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশন সংলগ্ন বাজারে নিয়ে আসেন সবজি বিক্রির জন্য। শঙ্খ চরের সবজির উপর ভিত্তি করে দোহাজারী পৌরসভার পাশাপাশি সাতকানিয়া উপজেলার বাজালিয়ার বোমাং হাট ও ছদাহার শিশুতলে নিয়মিত পাইকারি সবজি বাজার বসে।  পাইকারি ব্যবসায়ীরা এসব বাজার থেকে সবজি সংগ্রহ করে ট্রাক যোগে আশপাশের এলাকা ও চট্টগ্রাম-ঢাকা সহ সারেদেশে  সরবরাহ করেন। 

সবজি সংরক্ষণের জন্য চন্দনাইশ কিংবা সাতকানিয়ায়  হিমাগার না থাকায় সবজি চাষীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। দীর্ঘদিন যাবত কৃষকরা দাবি জানিয়ে আসলেও হিমাগার নির্মাণ হচ্ছেনা। ফলে পাইকারদের বেঁধে দেয়া দামে সবজি বিক্রি করতে বাধ্য হন কৃষকরা।  

এব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে চন্দনাইশ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা স্মৃতি রাণী সরকারের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও তাঁর মোবাইল বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

পরে দোহাজারী ব্লকের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মৃণাল কান্তি দাশের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গত ৬ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত টানা নয় দিনের বন্যার কারনে শঙ্খচরের ৮০০ হেক্টর জমির সবজি নষ্ট হয়ে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির তালিকা করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট রিপোর্ট প্রদান করেছি। সরকারি কোন সহযোগিতা আসলে আমরা কৃষকদের বিতরণ করবো।



image
image

রিলেটেড নিউজ

Los Angeles

১৬:৩৪, জুলাই ৭, ২০২০

জোয়ারের পানিতে ভাসছে আনোয়ারার বার আউলিয়া এলাকা


Los Angeles

১৫:৪১, জুলাই ৭, ২০২০

বাঁশখালীতে দুই বেইলি ব্রীজের জীর্ণ দশা : চরম ঝুঁকিতেই পারাপার


Los Angeles

১০:৪০, জুলাই ৬, ২০২০

আইসিসি আম্পায়ারিং থেকে সফল খামারি চট্টগ্রামের রবিউল


Los Angeles

০০:১০, জুলাই ৫, ২০২০

মিয়ানমার থেকে গবাদিপশু আমদানি শুরু


Los Angeles

২২:৩৮, জুলাই ২, ২০২০

উখিয়ায় বোরো ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে সংশয়


Los Angeles

০০:৪২, জুন ২৮, ২০২০

জেলেদের চাল বিতরণেও অনিয়ম


image
image
image

আরও পড়ুন

Los Angeles

১৪:৩০, জুলাই ৮, ২০২০

বাঁশখালীর শিলকুপ-টাইমবাজার ভাঙ্গা সড়ক কাদা পানিতে একাকার


Los Angeles

১৩:৫৬, জুলাই ৮, ২০২০

বোয়ালখালীতে কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে ৮ মাস ১১ দিন পর মামলা