image

আজ, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ইং

বন্যা শেষে পুনরায় শরৎকালীন সবজি চাষাবাদে ব্যস্ত শঙ্খচরের চাষীরা

মোঃ কামরুল ইসলাম মোস্তফা, চন্দনাইশ সংবাদদাতা    |    ১৪:৪৩, আগস্ট ৫, ২০১৯

image

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ ও সাতকানিয়া উপজেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত খরস্রোতা শঙ্খনদীর উভয় তীরের ১০ ইউনিয়নের প্রায় প্রায় ১০ হাজার কৃষকের জীবন-জীবিকা সবজি চাষের উপর নির্ভরশীল।

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সবজি ভান্ডার হিসেবে পরিচিত শঙ্খচরের উর্বর ভূমিতে চাষাবাদ করে পরিবার পরিজন নিয়ে দিনাতিপাত করেন তারা। কিন্তু গত ৬ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত টানা নয় দিনের অবিরাম বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের কারনে সৃষ্ট বন্যায় চাষীদের ফসলের ক্ষেত নষ্ট হয়ে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। বন্যার দুঃসহ স্মৃতি ভুলে ফের সবজি চাষাবাদের জন্য মাঠে নেমেছেন শঙ্খ চরের চাষীরা। 

সবজি ক্ষেতে কাজ করার সময় কথা হয় কৃষক আবু তাহের, শামছু মিয়া, নুরুল আলম বাচন, জসিম উদ্দীনের সাথে। তারা জানান, জুলাই মাসের বন্যায় তাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ক্ষেতের সবজি ক্ষেতেই পঁচে গেছে। এখন শরতকালীন সবজি চাষের উদ্দেশ্যে জমি প্রস্তুত করছেন তারা। 

চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী, ধোপাছড়ি, বৈলতলী, বরমা এবং সাতকানিয়া উপজেলার খাগরিয়া, কালিয়াইশ, পুরানগড়, ধর্মপুর, নলুয়া, চরতী ও আমিলাইশ ইউনিয়নের প্রায় ১০ হাজার কৃষক সবজি চাষের সাথে সরাসরি জড়িত।

তারা জানান, শঙ্খচরের মাটি উর্বর হওয়ায় এখানে সব ধরনের সবজি চাষ হয়। এই চরে উৎপাদিত বীষমুক্ত বেগুন ও মূলার আলাদা কদর রয়েছে সারা দেশব্যাপী। এছাড়া শিম, ঢেঁড়শ, করলা, চিচিঙ্গা, ঝিঙ্গা, তিত করলা, ফুলকপি, বাঁধাকপি, শসা, মিষ্টি কুমড়া, লাউ ও পেঁপে সহ বিভিন্ন ধরনের শাক উৎপাদন হয় এখানে। 

শঙ্খ চরে উৎপাদিত সবজি গুণেমানে ও স্বাদে ভালো হওয়ায় ভোজন রসিকদের কাছে এখানকার সবজির চাহিদা বেশি। কৃষকরা ভ্যান, রিক্সা, ট্রলি, নৌকা  ও ইঞ্জিন চালিত বোটে করে দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশন সংলগ্ন বাজারে নিয়ে আসেন সবজি বিক্রির জন্য। শঙ্খ চরের সবজির উপর ভিত্তি করে দোহাজারী পৌরসভার পাশাপাশি সাতকানিয়া উপজেলার বাজালিয়ার বোমাং হাট ও ছদাহার শিশুতলে নিয়মিত পাইকারি সবজি বাজার বসে।  পাইকারি ব্যবসায়ীরা এসব বাজার থেকে সবজি সংগ্রহ করে ট্রাক যোগে আশপাশের এলাকা ও চট্টগ্রাম-ঢাকা সহ সারেদেশে  সরবরাহ করেন। 

সবজি সংরক্ষণের জন্য চন্দনাইশ কিংবা সাতকানিয়ায়  হিমাগার না থাকায় সবজি চাষীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। দীর্ঘদিন যাবত কৃষকরা দাবি জানিয়ে আসলেও হিমাগার নির্মাণ হচ্ছেনা। ফলে পাইকারদের বেঁধে দেয়া দামে সবজি বিক্রি করতে বাধ্য হন কৃষকরা।  

এব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে চন্দনাইশ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা স্মৃতি রাণী সরকারের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও তাঁর মোবাইল বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

পরে দোহাজারী ব্লকের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মৃণাল কান্তি দাশের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গত ৬ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত টানা নয় দিনের বন্যার কারনে শঙ্খচরের ৮০০ হেক্টর জমির সবজি নষ্ট হয়ে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির তালিকা করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট রিপোর্ট প্রদান করেছি। সরকারি কোন সহযোগিতা আসলে আমরা কৃষকদের বিতরণ করবো।



image
image

রিলেটেড নিউজ

Los Angeles

১৮:৪০, অক্টোবর ১৬, ২০১৯

লোহাগাড়ায় ঝুঁকিপূর্ণ স্কুল ভবনেই চলছে শিক্ষা কার্যক্রম


Los Angeles

১৮:৩৩, অক্টোবর ১৬, ২০১৯

দুই দশকেও হৃষ্টপুষ্ট হয়নি মিরসরাইয়ের কয়লা পশ্চিম সোনাই উচ্চ বিদ্যালয়


Los Angeles

১৬:১৮, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

চকরিয়ায় দু’কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন ভাঙ্গা হচ্ছে


Los Angeles

১০:৪২, অক্টোবর ১২, ২০১৯

৭ মাস ধরে শিক্ষা অফিসার ছাড়াই চলছে বোয়ালখালীর শিক্ষা কার্যক্রম


Los Angeles

১৬:৪৮, অক্টোবর ১০, ২০১৯

বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ মোঃ আবু তাহের খাঁন খসরুর ৪৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী


Los Angeles

২৩:৩৩, অক্টোবর ৬, ২০১৯

সীতাকুণ্ডে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকার অবমাননা


Los Angeles

১২:২৮, অক্টোবর ৬, ২০১৯

হুমকির মুখে জনস্বাস্থ্য : লোহাগাড়ায় ভূয়া হোমিও ডাক্তারের ছড়াছড়ি !


image
image
image

আরও পড়ুন

Los Angeles

০০:৪৯, অক্টোবর ২১, ২০১৯

রাউজানে সাতদিন পর নিখোঁজ কিশোর উদ্ধার


Los Angeles

০০:৪০, অক্টোবর ২১, ২০১৯

লোকালয়ে মুরগির বর্জ্য, পঁচা দুর্গন্ধে জনজীবন বিপাকে