image

আজ, রবিবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২০ ইং

রোহিঙ্গাদের হাতে জাতীয় পরিচয় পত্র: জড়িতদের বিরুদ্ধে চলছে তদন্ত

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি    |    ১৭:০৬, অক্টোবর ২৭, ২০২০

image

রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয় পত্র বানিয়ে দেয়ার ইস্যু’র কাজে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। এর আগে ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে টনক নড়ে নির্বাচন কমিশনের। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনসহ কয়েক স্তরের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কক্সবাজার জেলা নির্বাচন অফিসারের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটির তদন্ত কার্যক্রম প্রায় শেষ পর্যায়ে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট সূত্র।

জানা গেছে, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয় পত্র বানিয়ে দেন একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট। এদের মধ্যে রয়েছে এলাকার স্কুল শিক্ষক, চৌকিদার, দফাদার ও জনপ্রতিনিধি। তাদের একজন স্কুল শিক্ষক সিরাজুল হক। তিনি দেশের প্রচলিত আইন না মেনে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে অনেক রোহিঙ্গাকে নিজের আতœীয় পরিচয়ে ভূয়া কাগজপত্র সৃজন করে নিজে শনাক্তকারী হিসেবে জাতীয় পরিচয় পত্র ইস্যু করার কাজে সহযোগিতা করেছেন বলে তদন্তে উঠে এসেছে।

সরেজমিন ঘুমধুম সীমান্ত এলাকা ঘুরে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দার সাথে কথা বলে জানা গেছে, ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় কতিপয় শিক্ষক নামধারী সিরাজুল হক তথ্য সংগ্রহকারীদের উপর দলীয় প্রভাব বিস্তার করে সীমান্তে অবস্থান করা বেশ কিছু রোহিঙ্গাদেরকে বাংলাদেশী হিসেবে জাতীয় পরিচয় পত্র করিয়ে দেয়ার জন্য অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়।

সিরাজের বিরুদ্ধে ১৩ রোহিঙ্গাকে সহযোগিতার প্রমাণ মিলেছে ঘুমধুম ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল গফুর বলেন, রেজু আমতলী এলাকার মৃত আলী আহমদের ছেলে সিরাজুল হকের অনুরোধে আমি একজনের ভোটার ফরমে স্বাক্ষর করি। পরবর্তিতে জানতে পারি সে রোহিঙ্গা নাগরিক।

একই কথা বলেন, ঘুমধুম ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বাবুল কান্তি চাকমা। তিনি বলেন, বান্দরবান জেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার নেতৃত্বে তদন্তে শিক্ষক সিরাজুল হকের বিরুদ্ধে ১৩ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশী নাগরিকত্ব করার কাজে সংশ্লিষ্টতার সত্যতা মিলেছে। তৎমধ্যে আজিজুল হকের ছেলের বলে আমার কাছ থেকে একটি ফরমে মাস্টার সিরাজ স্বাক্ষর নেয়। সে যে রোহিঙ্গা তা আমি জানতাম না। বাকী ১২জনের ফরমেও সিরাজুল হকের সুপারিশের ভিত্তিতে অন্যরা স্বাক্ষর করে বলে জানা গেছে। এরা সবাই নাকি রোহিঙ্গা।

স্থানীয় চৌকিদার বদিউর রহমান বলেন, সিরাজুল হকের সহযোগিতায় রোহিঙ্গারা সহজে ভোটার হয়ে গেছে। এভাবে যদি রোহিঙ্গারা ভোটার হতে থাকে, তাহলে একদিন পুরো এলাকা রোহিঙ্গাদের দখলে যাবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শিক্ষক সিরাজুল হক বলেন, আমি যাচাইকারী কিংবা শনাক্তকারী ছিলাম না, এ সম্পর্কে আমি কিছুই জানিনা।

ঘুমধুম ইউ.পি চেয়ারম্যান একে জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, ইতিমধ্যে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর জেনেছি অনিয়মের মাধ্যমে কিছু সিন্ডিকেট সদস্যের সহযোগিতায় ৫ শতাধিক রোহিঙ্গা জাতীয় পরিচয় পত্রধারী হয়েছে। এ ঘটনায় নির্বাচন কমিশনসহ কয়েক স্তরের তদন্ত চলছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কক্সবাজার জেলা নির্বাচন অফিসার ও তদন্ত কমিটির প্রধান এস.এম শাহাদাৎ হোসেন বলেন, রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরির কাজে সহযোগিতাকারীদের বিরুদ্ধে সরেজমিনে তদন্ত করেছি। তদন্তের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। আগামী ৩০ অক্টোবরের পরে কমিশনকে রিপোর্ট হস্তান্তর করা হবে বলে তিনি জানান।



image
image

রিলেটেড নিউজ

Los Angeles

১৭:৪২, নভেম্বর ২৫, ২০২০

উখিয়ার উপকূলে বাড়ছে শিশুশ্রম


Los Angeles

০০:৫৪, নভেম্বর ২২, ২০২০

সাবান পানি কিছুই নাই, বেসিন আছে দাঁড়িয়ে ঠাঁই


Los Angeles

২৩:৫৪, নভেম্বর ২১, ২০২০

দিন দিন বেপরোয়া-ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠছে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দারা : শঙ্কায় জনপদের মানুষ


Los Angeles

০০:৩৩, নভেম্বর ২১, ২০২০

উখিয়া কক্সবাজারসহ পুরো দক্ষিণ চট্টগ্রামে বেড়েছে রোহিঙ্গা ভিক্ষুকের পদচারণা


Los Angeles

০০:১২, নভেম্বর ২০, ২০২০

টেকনাফে মুড়ি মোয়া’র মতো বিক্রি হয় গ্যাস সিলিন্ডার : বিষ্ফোরক লাইসেন্সের তোয়াক্কা নেই


Los Angeles

০০:১৪, নভেম্বর ১৬, ২০২০

উখিয়ায় নেই বাসস্ট্যান্ড : যত্রতত্র পার্কিংয়ে যানজটে বিপর্যস্ত জনজীবন


Los Angeles

১৬:৫০, নভেম্বর ৯, ২০২০

উখিয়ায় সুপারী চাষে কৃষক হাসে : যাচ্ছে দেশের বাইরেও


Los Angeles

২৩:১৮, নভেম্বর ৪, ২০২০

অসময়ের বৃষ্টিতে উখিয়ায় লন্ডভন্ড ক্ষেতের ফসল : কৃষকের মাথায় হাত


image
image
image

আরও পড়ুন

Los Angeles

১২:৫৫, ডিসেম্বর ৫, ২০২০

চট্টগ্রামে অনলাইন কেনাকাটার বিশ্বস্থ ঠিকানা


Los Angeles

২১:২০, ডিসেম্বর ৪, ২০২০

বান্দরবানের লামায় ট্রলির ধাক্কায় মোটরসাইকেল চালক নিহত


Los Angeles

২১:০৩, ডিসেম্বর ৪, ২০২০

মিরসরাইয়ে রেল লাইনে ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে বোনেরও মৃত্যু