image

হাজারীবাগে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে তৈরী হচ্ছে স্পেশাল কিং নামে মাণহীন দই

image

কোনো রকম নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে আবাসিক বাসাবাড়ির মধ্যে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বানানো হচ্ছে দেশ সেরা বিভিন্ন কোম্পানির দই আর মাঠা। আর রমজানে ভালোই কাটতি এসব নোংরা অস্বাস্থ্যকর দই-মাঠার। অস্বাস্থ্যকর কারখানাগুলো বন্ধে প্রশাসনের নেই কোনো নজরদারি।

হাজারীবাগ কোম্পানি ঘাট এলাকার একটি  ফ্ল্যাট বাড়িতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরী করা হচ্ছে দই,রসমালাই, মাঠা ইত্যাদি। নোংরা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে টিস্যু পেপার দিয়ে দুধের সর তৈরি করে এটিকে আসল মাঠা প্রমাণ করার কাজে ব্যস্ত এসব অসাধু কারিগররা। শুধু কি মাঠা? ছোট্র এই কারখানাটিতে কি বানানো হয়না ? দেশ সেরা নামি এসব ব্যান্ডের দই ও দুধও বানানো হয় এখানে। এসব কারখানার নেই কোনো রেজিস্ট্রেশন।

নামি কোম্পানির পণ্যের স্টিকার লাগিয়ে রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে এসব অসাধু ব্যবসায়ী। বাথরুমে বানানো হচ্ছে ভেজাল মাঠা; মাছ-মাংসের সঙ্গেই তা ঠান্ডা হচ্ছে একই ফ্রিজে। নোংরা তো বটেই একরকম অস্বাস্থকর পরিবেশে নষ্ট দুধ- দই মিশিয়ে বানানো হচ্ছে ভেজাল মাঠা। তবে কিভাবে- এসব মাঠা আর দই বানানো হয় তা একবার স্বীকার করেও, পরক্ষণেই আবার অস্বীকার করে এই অসাধু কারিগর।

রাজধানীতে এমন কতগুলো নকল বা ভেজাল দই আর মাঠা তৈরির কারখানা আছে যেগুলোর কোনো মাণ নেই।