image

দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশনে যাত্রীদের উপচেপড়া ভীড়ঃ রেকর্ড সংখ্যক টিকিট বিক্রি

image

পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে ছুটি কাটাতে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা মানুষগুলো এখন ছুটছেন স্ব স্ব কর্মস্থলে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক দিয়ে চলাচলরত বিভিন্ন যানবাহনে করে চট্টগ্রাম শহর ও বিভিন্ন গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা। তবে সড়ক পথের চেয়ে অধিক নিরাপদ হওয়ায় রেলপথে আগ্রহী হচ্ছেন যাত্রীরা। বেশ কয়েকমাস আগে দোহাজারী টু চট্টগ্রাম রুটে দুই জোড়া ট্রেন চলাচল শুরু হওয়ায় যাত্রী ভোগান্তি কিছুটা কমেছে।

সোমবার (১০ জুন) বিকালে দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশনে গিয়ে দেখা যায় দোহাজারী পৌরসভা ও পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন থেকে স্ব স্ব কর্মস্থলে ফিরতে ব্যতিব্যস্ত কর্মজীবী মানুষের ভীড়। টিকেটের জন্য চলছে হাহাকার। কাউন্টারে টিকেট পেলেও ট্রেনের ভিতরে আসন খালি নেই। তিল ধারণের যায়গা ছিলোনা বিকাল আড়াইটায় দোহাজারী থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া ১১৪ নং ডাউন ট্রেনটিতে। অনেক নারী যাত্রীকেও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। ভেতরে যায়গা না পেয়ে অনেকে উঠেছে ট্রেনের ছাদে। 

দোহাজারী রেলওয়ে ষ্টেশনের সহকারী ষ্টেশন মাষ্টার মোঃ আতিকুল ইসলামের সাথে আলাপকালে তিনি জানান, "দোহাজারী থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া সকাল ৬টার ১১২ নং ডাউন এবং বিকাল ২টার ১১৪ নং ডাউন ট্রেনে যাত্রীদের ভাড়া জনপ্রতি পাঁচ টাকা থেকে সর্বোচ্চ চৌদ্দ টাকা পর্যন্ত। বিগত দিনগুলোতে প্রতিদিন এক হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ তিন হাজার টাকা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি হতো। বিগত তিন দিনে সর্বমোট পঁচিশ হাজার পাঁচ শত বাষট্টি টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে। গত শনিবারে আট হাজার দশ টাকা, রবিবারে আট হাজার একশত পঁঞ্চান্ন টাকা এবং সোমবারে নয় হাজার তিন শত সাতানব্বই টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে বলে জানান তিনি।