image

লক্কর-ঝক্কর কাঠের পাঠাতনের ব্রীজই ভরসা চন্দনাইশবাসীর

image

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার বরমা ইউনিয়নের চর বরমা-বাইনজুরী সড়কে চাঁনখালী খালের শাখা নিশিকান্ত খালের ওপর নির্মিত সেতু চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। অন্য কোনো উপায় না থাকায় ওই সেতুর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়েই যাতায়াত করছেন স্থানীয়রা। 

জানা যায়, নিশিকান্ত খালের ওপর কাঠের পাটাতনের সেতুটি নির্মাণ করা হয় ১৯৯৫ সালে। সেতুটির বিভিন্ন স্থানে পাটাতনের কাঠগুলো বৃষ্টিতে ভিজে, রোধে শুকিয়ে ভেঙে পড়ছে খালে। বেশ কয়েকটি কাঠ নিচে পড়ে যাওয়ায় যানবাহন চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। বর্তমানে সেতুটি এতটাই ঝুঁকিপূর্ণ যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। 

দীর্ঘদিনেও সেতুটির সংস্কার কাজ না হওয়ায় স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের পাশাপাশি হাট-বাজারসহ বিভিন্ন প্রয়োজনে এলাকার সাধারণ মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেতু পারাপার হচ্ছে। 

চর বরমা ও বাইনজুরী এলাকার মানুষ কৃষিনির্ভর। এখানকার কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসল বিক্রি করার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সেতুটি দিয়ে পারাপার হতে গিয়ে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। দ্রুততম সময়ে ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের পাটাতন অপসারণ করে সংস্কার করার পাশাপাশি এখানে একটি পাকা সেতু নির্মাণ করে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘবের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে চন্দনাইশ উপজেলা প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মো. বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘নিশিকান্ত খালের ওপর কাঠের পাটাতনের সেতুর স্থলে পাকা সেতু নির্মাণের জন্য ডিজিটাল সার্ভে করা হয়েছে, ডিজাইন হচ্ছে। অন্যান্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে শীঘ্রই সেতু নির্মাণ করা হবে।’