image

লোহাগাড়ার ইটভাটার কর্মহীন ৩হাজার শ্রমিকের কপালে চিন্তার ভাঁজ

image

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায়  ইটভাটার প্রায় তিন হাজার শ্রমিক কর্মহীন হয়ে পড়েছে। সেই সাথে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ইটভাটার মালিকরা। ঋনের বোঝা নিয়ে অসহায় ভাটার মালিকগণ। মহামান্য হাইকোর্টের আদেশে পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসনের যৌথ টিম উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৭টি ইটভাটা গুঁড়িয়ে দেয়ার কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে ইটভাটার মালিকরা জানান। 

জানা গেছে, মহামান্য হাইকোর্টের আদেশে গত বছরের ২১ ও ২২ ডিসেম্বর' লোহাগাড়ার বিভিন্ন এলাকার সাতটি ইটভাড়া গুড়িয়ে দেয় পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসন। ফলে  ক্ষতিগ্রস্ত হয় ভাড়া মালিক ও শ্রমিক। কর্মহীন হয়ে পড়ে প্রায় তিন হাজার শ্রমিক। 

বার আউলিয়া ইটভাটার শ্রমিকের মাঝি ইউনূছ বলেন, ইটভাটা চালুর তিন মাস পূর্বে শ্রমিকরা মালিক থেকে টাকা অগ্রিম নিয়েছে। অগ্রিম টাকা দিয়ে সংসার চালায় শ্রমিকরা। এই অগ্রিম টাকা পরিশোধ ও সংসার নিয়ে দুঃচিন্তায় রয়েছে শ্রমিকরা।

ইটভাটা মালিকেরা জানান, একটি ইটভাটা নির্মাণ করতে প্রায় তিন কোটি টাকা পুঁজি বিনিয়োগ করতে হয়। একটি ইটভাটা ৫/৬ জন শেয়ারে বিনিয়োগ করেন। অধিকাংশ ইটভাটা মালিক আর্থিক প্রতিষ্টান থেকে ঋণ নিয়ে ইটভাটা চালায়। এমন পরিস্থিতিতে ইটভাটার মালিকেরা উৎকন্ঠায় রয়েছেন। 

লোহাগাড়া ব্রীকফিল্ড মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মো: সরওয়ার আলম বলেন, কেউ আইনের ঊর্দ্ধে নয়। ইটভাটা মালিকগণ বিনিয়োগ করে ফেলেছেন।  ইটভাটা স্থানান্তরের জন্য সময় দিলে বিনিয়োগগুলো নষ্ট হতো না। মালিকরা পথে বসতো না। তাছাড়া প্রত্যেক ইটভাটা ট্রেড লাইসেন্স, খাজনা, ভ্যাট, ইনকাম টেক্স পরিশোধ করেন।