image

Knowledge rich বনাম Knowledge poor 

image

১. চলতি আইপিএল-এর ফাঁকেই আসন্ন বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিয়ে চিন্তা ভাবনা শুরু করে দিয়েছেন বিরাট কোহলী ও কাইল জেমিসন। দুজনেই রয়্যাল চ্যালেঞ্জারর্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে একসাথে খেললেও নিউজিল্যান্ড বোলারের থেকে যদিও কোনও সাহায্যই পাচ্ছেন না ভারত অধিনায়ক! এমন একটি খবর প্রকাশ করেছে আনন্দবাজার পত্রিকা। 

এতে আরো জানা যায়,  ভারতে আসার আগে থেকেই জেমিসন তাঁর ব্যাগে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ব্যবহার হতে চলা ডিউক বল নিয়ে ঘুরছেন। মাঝেমধ্যে সেই বলে বোলিং অনুশীলনও সেরে নিচ্ছেন এই কিউই বোলার। তবে ভারত অধিনায়ক নেটে তাঁর বল খেলতে চাওয়ায় সরাসরি ‘না’ বলে দেন জেমিসন। ব্যাঙ্গালোর দলের আরেক সদস্য ড্যান ক্রিশ্চিয়ান এক ইউটিউব চ্যানেলে সাক্ষাৎকারে জানান এই তথ্য।

তিনি বলেন, ‘‘বিরাট খুব চালাক। নেটে অনুশীলন করার পর আমরা তিন জন বিরাট, জেমিসন আর আমি বসে ছিলাম। সেই সময় দুজনের মধ্যে টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে কথা হচ্ছিল। বিরাট তখন বলে, জেমি তুমি তো ডিউক বলে অনেক বল করেছ। জেমি উত্তর দেয়, হ্যাঁ আমার কাছে দুটো ডিউক বল রয়েছে। আমি ইংল্যান্ডে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলতে যাওয়ার আগে ওই বলে অনুশীলন করব। তখনই বিরাট বলে, তুমি আমাকেও নেটে ওই বলে বল করতে পার। তোমার বল খেলতে পারলে আমারও ভাল লাগবে। জেমি সঙ্গেসঙ্গেই সেই আবেদন খারিজ করে বলে, না না আমি তোমায় বল করব না।’’ আসলে বিরাট চেয়েছিল জেমির বল ছাড়ার ধরন আয়ত্ত করতে।’’

জেমিসনের বলে বরাবরই সমস্যায় পড়েন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। সেই কারণেই কিউই পেসারের বিরুদ্ধে নিজের দক্ষতা পরখ করে নিতে চাইছিলেন ভারত অধিনায়ক। কিন্তু জেমিসন এর সাফ কথা,  তুমি আমারে আইপিএলে পাবা, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে পাবা না। তোমার জানা তোমার থাকুক, আমার জ্ঞান আমার। 

২. প্রথম আলো'র প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, উন্নয়নশীল দেশগুলোতে করোনা টিকার ফর্মুলা দিতে রাজি নন বিল গেটস। টিকা তৈরির জন্য উন্নয়নশীল দেশগুলোকে ফর্মুলা দিতে মেধাস্বত্ব সম্পত্তি আইন পরিবর্তনের বিষয়টিও খুব বেশি কাজে আসবে না বলে মনে করেন মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা। বিল গেটস বলেন, ধনী দেশগুলো নিজেদের জন্য টিকাকে অগ্রাধিকার দিয়েছে, তা দেখে তাঁর আশ্চর্য লাগেনি। যুক্তরাজ্যের দ্য ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিল গেটসের এ মন্তব্যে সমালোচনার ঝড় বইছে।

এদিকে ফর্মুলা গোপন রাখার শর্তে টিকা তৈরিতে সফল বিভিন্ন দেশ টিকা রপ্তানি কিংবা অন্য দেশে  প্রস্তুতের জন্য সমঝোতা চুক্তি করছে। এ সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী তৃতীয় দেশে কোভিড ভ্যাকসিন রফতানিও করতে পারবে। টিকা তরল কিংবা পাউডার হিসেবেও নেয়া যাবে, তবে কোনোমতেই টিকার ফর্মূলা প্রকাশ করা যাবে না।  

৩. মানবতার চেয়ে এখন জ্ঞানের আভিজাত্য কিংবা জ্ঞানকে পণ্য বানিয়ে বেসাতি এখন বড় হয়ে ধরা দিয়েছে। কোভিড-১৯ এর টিকা তৈরি ও ব্যবহারে জ্ঞানসূচকে তলানিতে থাকা দেশগুলোকে বেশি পর মুখাপেক্ষী থাকতে হচ্ছে।  জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ গড়ে তোলার যে আহবান বা আকুতি আমরা শুনতে পাই সেটি বাস্তবায়ন করতে গেলে হয়তো এমন দশা তেমন হতো না। জ্ঞান সম্পদের ভান্ডার গড়ে তুলতে না পারলে Knowledge rich এর কাছে ধর্ণা দিয়ে যেতেই হবে। 

৪. মানুষের জীবনে যা কিছু সুখের উপকরণ তা এসেছে জ্ঞানের ব্যবহারের ফলে। যা কিছু বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার কিংবা উদ্ভাবন সবই মানুষের জ্ঞান সাধনার ফল। যেসব জাতি আজ উন্নতির শিখরে উঠেছে তারা জ্ঞান থেকেই শক্তি পেয়েছে। ধনসম্পদ, গোলাবারুদ দিয়ে যা করা যায় না তা করা যায় জ্ঞানের প্রয়োগের মাধ্যমে। জ্ঞানের প্রভাব সর্বব্যাপী। মানুষ তার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছে জ্ঞানের সাহায্যে। জ্ঞান বুদ্ধি দিয়ে মানুষ জীবনের সকল বাধা দূর করেছে।

দার্শনিক আরজ আলী মাতুব্বর একটি দামী কথা বলেছিলেন,"বিদ্যাশিক্ষার ডিগ্রী আছে। জ্ঞানের কোনো ডিগ্রী নেই। জ্ঞান ডিগ্রীবিহীন ও সীমাহীন।"

জ্ঞানই মানুষকে অগ্রগতির পথে, শ্রেষ্ঠত্বের পথে চালিত করে। তাই জ্ঞানের সাধনায় আরো বেশি আত্মনিয়োগ করে যথার্থ শক্তিমান হয়ে উঠা দরকার।

লেখক : ফজলুর রহমান, রচনা সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক এবং উপ-পরিচালক,  চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)।