image

আজ, মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১ ইং

বঙ্গবন্ধু কর্তৃক বাংলাদেশের অসহযোগ আন্দোলনের ৩৫ দফা নির্দেশ জারি

মোহাম্মদ ওমর ফারুক দেওয়ান    |    ২৩:৪১, মার্চ ১৫, ২০২১

image

১৪ই মার্চ, ১৯৭১ তারিখে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অসহযোগ আন্দোলনকে ফলপ্রসু করতে ৩৫ দফা নির্দেশনা জারি করেন। একই তারিখে জুলফিকার আলী ভূট্টো তার অবস্থান ব্যাখ্যা করেন করাচীর নিশতার পার্কে এক জনসভার মাধ্যমে। কলেবর বৃদ্ধি পাওয়ায় অন্যান্য সংবাদ দেওয়া গেল না।

অসহযোগ চলিবে
সর্বসাধারণের প্রতি শেখ মুজিবের নির্দেশ

অসহযোগ আন্দোলন অব্যাহত রাখার আহ্বান জানাইয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান গতকল্য (রবিবার) এক বিবৃতিতে বলেন : জনগণের বীরত্বপূর্ণ সংগ্রাম আগাইয়া চলিয়াছে। সমগ্র বিশ্বে যাহারা মুক্তিকামী এবং মুক্তির জন্যই সংগ্রাম করিয়া চলিয়াছে তাহারা আমাদের দাবীকে তাহাদের নিজেদের দাবী বলিয়াই গ্রহণ করিবে। যাহারা শক্তির দ্বারা শাসন করার চক্রান্ত করে তাহাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের দুর্গ তৈয়ার করিতে কতখানি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ ও ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন আমাদের জনগণ তাহা প্রমাণ করিয়াছে।
আজ বাংলা দেশের নারী-পুরুষ-শিশু নির্বিশেষে প্রত্যেকেই মাথা উঁচু করিয়া দাঁড়াইবার যোগ্যতা অর্জন করিয়াছে। যাহারা ভাবিয়াছিল শক্তিমত্তার নগ্ন প্রয়োগের মাধ্যমে বাংলার জনগণকে দমানো যাইবে, বাংলার মানুষ তাহাদিগকে চূড়ান্তভাবে পর্যুদস্ত করিয়াছে। সরকারী চাকুরে, অফিস ও কারখানার শ্রমিক, কৃষক ও ছাত্রসহ বাংলা দেশের সর্বস্তরের জনগণ অকুণ্ঠচিত্তে জানাইয়া দিয়াছে যে, তাহারা আত্মসমর্পণ অপেক্ষা আত্মবলিদানে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
ইহা অত্যন্ত দুঃখজনক যে, এমতাবস্থায়ও কোন কোন অবিবেচক ব্যক্তি সামরিক আইন নির্দেশ জারি করিয়া বেসামরিক কর্মচারীদের এক অংশকে দমাইয়া দিতে চাহিতেছেন। কিন্তু, আজ ঐক্যবদ্ধ আপামর জনগণ সামরিক আইনের নিকট নতি স্বীকার না করার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
কাজেই, যাহাদের প্রতি সামরিক আইনের সর্বশেষ নির্দেশ দেওয়া হইয়াছে তাহাদের প্রতি আমার অনুরোধ তাহারা যেন হুমকির সম্মুখে মাথা নত না করেন। বাংলা দেশের সাড়ে সাত কোটি জনগণ তাহাদের ও তাহাদের পরিবারের পিছনে রহিয়াছে। তাহাদিগকে ভয় দেখাইবার বর্তমান প্রয়াসও বাংলা দেশের জনগণকে ভ্রুকুটি করার প্রচেষ্টার মতই প্রতিহত করা হইবে। বাংলা দেশের মুক্তির আকাংক্ষাকে নির্মূল করা যাইবে না। আমরা অজেয়, কারণ আমরা মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত এবং প্রয়োজনবোধে আমাদের ভবিষ্যৎ বংশধররা যাহাতে স্বাধীন দেশের স্বাধীন নাগরিক হিসাবে স্বাধীন ও মর্যাদার সহিত বাঁচিতে পারে তাহার নিশ্চয়তা বিধান করিতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। কাজেই যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা মুক্তির লক্ষ্যে পর্দাপণ না করিব, ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের সংগ্রাম আরও পূর্ণোদ্যমে অব্যাহত থাকিবে। আমি যে কোন আত্মত্যাগে প্রস্তুত থাকিবার এবং কোন প্রকার শক্তিপ্রয়োগ করিলে তাহা সম্ভাব্য সকল উপায়ে প্রতিরোধ করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানাইতেছি।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান গতকাল (রবিবার) বাংলা দেশের অসহযোগ আন্দোলনের ৩৫ দফা নির্দেশ জারি করিয়াছেন। এই কর্মসূচী বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ (বলিয়া) ...  বিবেচিত হইবে। নয়া নির্দেশের মাধ্যমে পূর্ববর্তী সকল নির্দেশ ও উহার ব্যাখ্যাসমূহ বাতিল বলিয়া গণ্য হইবে। এই নির্দেশ অদ্য (সোমবার) ১৫ই মার্চ) হইতে কার্যকরী হইবে। নিম্নে নির্দেশাবলী প্রদত্ত হইল।

সরকারী বিভাগসমূহ : বাংলা দেশের সর্বত্র কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক সরকারের সেক্রেটারীয়েট ও দফতরসমূহ, আধা-সরকারী প্রতিষ্ঠান, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, হাইকোর্ট এবং অন্যান্য আদালতে নিম্নবর্ণিত নির্দেশ অনুসারে হরতাল পালিত হইবে। বিভিন্ন সময়ে নির্দেশের সে ব্যাখ্যা ও নির্দেশ সংক্রান্ত অব্যাহতি প্রদান করা হইবে, তাহাও এই নির্দেশের অংশ বলিয়া গণ্য করিতে হইবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: বাংলা দেশের সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকিবে।

আইন ও শৃংখলা রক্ষা :
(ক) ডেপুটি কমিশনারগণ ও মহকুমা শাসকবর্গ তাঁহাদের অফিস না খুলিয়া আইন ও শৃংখলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করিয়া যাইবেন। এই নির্দেশ কার্যকরী করার জন্য প্রয়োজন হইলে উন্নয়নমূলক কাজসহ অন্যান্য কাজও তাহারা করিবেন। সংশ্লিষ্ট প্রশাসক ও কর্তৃপক্ষ তাহাদের দায়িত্ব পালন ও কাজের জন্য সংশ্লিষ্ট স্তরে আওয়ামী লীগ সংগ্রাম পরিষদের সহিত ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রক্ষা করিবেন এবং তাহাদের সহিত সহযোগিতা করিয়া কাজ করিবেন।
(খ) পুলিস বিভাগ আইন-শৃংখলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করিবেন এবং প্রয়োজন হইলে আওয়ামী লীগ স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর সাহায্য গ্রহণ করিবেন।
(গ) জেল ওয়ার্ডায় ও জেল অফিসসমূহে কাজ হইবে।
(ঘ) আনসার বাহিনী যথারীতি কাজ করিয়া যাইবে। 

* বন্দর (আভ্যন্তরীণ নদী বন্দরসহ) : বন্দরসমূহে পাইলটেজসহ সর্বপ্রকার কাজ হইবে। তবে বন্দরে জাহাজ গমনাগমনের কাজ সুষ্ঠুভাবে চালাইবার জন্য অফিসের যে সমস্ত বিভাগের কাজ করা প্রয়োজন, সেই অফিসগুলিই কেবল খোলা থাকিবে। কিন্তু নির্যাতন করার উদ্দেশ্যে সৈন্য বাহিনী চলাচল ও রসদ সরবরাহের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা চলিবে না। জাহাজ খালাসের কাজ, বিশেষতঃ বাংলা দেশের জন্য খাদ্যসামগ্রী আমদানী করা জাহাজ খালাসের কাজ দ্রুততর করিতে হইবে। বন্দর কর্তৃপক্ষ বন্দর শুল্ক ও নোঙ্গর শুল্ক এবং আভ্যন্তরীণ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ বন্দর শুল্ক ও অন্যান্য খাজনা আদায় করিতে পারিবেন। 

* আমদানী : আমদানী পণ্যবাহী জাহাজ খালাসের কাজ দ্রুত করিতে হইবে। শুল্ক বিভাগের সংশ্লিষ্ট অফিসে কাজ হইবে এবং তাহারা পণ্যের জন্য নির্ধারিত আমানতের পূর্ণ টাকা আদায় করিয়া পণ্যের ছাড়পত্র প্রদান করিবেন। ইহার জন্য ইষ্টার্ণ মারকেন্টাইল ব্যাঙ্ক লিমিটেডে বিশেষ একাউন্ট খলিতে হইবে। শুল্ক বিভাগের কালেক্টরগণ বিভিন্ন সময়ে আওয়ামী লীগ যে নির্দেশ জারি করিবেন, সেই নির্দেশ অনুসারে পূর্বোল্লিখিত ব্যাঙ্ক একাউন্ট পরিচালনা করিবেন। এইভাবে যে টাকা আদায় হইবে, তাহা কেন্দ্রীয় সরকারের নিকট লগ্নি করা যাইবে না।

* রেলওয়ে : রেলওয়ের কাজ চলিবে। তবে রেল চলাচলের সহিত সংশ্লিষ্ট রেলওয়ের অফিসগুলিই কেবল খোলা থাকিবে। কিন্তু সৈন্য সামন্ত যাতায়ত ও রসদ সরবরাহের সহযোগিতা করা চলিবে না। বাংলা দেশের অভ্যন্তরে খাদ্যশস্য প্রেরণের জন্য রেল কর্তৃপক্ষকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে ওয়াগনের ব্যবস্থা করিতে হইবে। 

* ডাক ও তার: বাংলা দেশের মধ্যে চিঠিপত্র, টেলিগ্রাম, মানিঅর্ডার প্রভৃতি আদান-প্রদানের জন্য ডাক ও তার অফিসগুলি কাজ করিবে। বিদেশে প্রেরিতব্য সকল প্রকার মেল সার্ভিস ও টেলিগ্রাম সরাসরি সংশ্লিষ্ট দেশে প্রেরণ করিতে হইবে। ব্যাংকগুলির অনুমোদিত টেলিপ্রিন্টার সার্ভিসের জন্য সোম, মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা হইতে ৪টা পর্যন্ত মাত্র এক ঘণ্টার জন্য আন্তঃআঞ্চলিক টেলিপ্রিন্টার চ্যানেল খোলা থাকিবে। আন্তঃআঞ্চলিক প্রেস টেলিগ্রাম পাঠান যাইবে। পোষ্টাল সেভিংস ব্যাংক ও লাইফ ইন্সুরেন্স চালু থাকিবে।

* টেলিফোন : শুধু স্থানীয় এবং আন্তঃজেলা ট্র্যাংক টেলিফোন চালু থাকিবে। টেলিফোন ব্যবস্থা রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কার সাধনের জন্য প্রয়োজনীয় বরাদ্দের বিষয়টি অব্যাহত থাকিবে।

* রেডিও টেলিভিশন সংবাদপত্র : এইগুলি চালু থাকিবে এবং গণ-আন্দোলনের সকল সংবাদ এবং এই সংক্রান্ত সকল বিবৃতির পূর্ণ বিবরণ পরিবেশন করিতে হইবে, অন্যথায় এইসব প্রতিষ্ঠানে যাহারা কাজ করিতেছেন তাহারা কার্যে সহযোগিতা করিবেন না।

* খাদ্য সরবরাহ : খাদ্যশস্যের আমদানী, বিতরণ, গুদামজাতকরণ ও প্রয়োজনীয় স্থানান্তরের বিষয়গুলিকে সর্বাগ্রে প্রাধান্য দিতে হইবে এবং এজন্য ওয়াগন, বার্জ, ট্রাক প্রভৃতির ব্যবস্থা করার বিষয়টিকেও সর্বাগ্রে প্রাধান্য দিতে হইবে।

* কর-খাজনা বন্ধ :
(ক) পুনর্বার নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত 
(১) কোন ভূমি রাজস্ব আদায় করা হইবে না :
(২) বাংলা দেশে তৈরী লবণের উপর হইতে কোন আবগারী কর আদায় করা হইবে না। 
(৩) বাংলা দেশে উৎপাদিত আনম্যানুফ্যাকচার্ড তামাকের উপর হতে কোন কর আদায় করা হইবে না।
(৪) তাঁতীরা কোন আবগারী কর না দিয়াই সূতা ক্রয় করিতে পারিবেন : মিল কর্তৃপক্ষ ও ডিলারগণ তাঁতীদের নিকট সূতা ‘নন ডিউটি পেইড’ মূল্যে বিক্রয় করিবেন।
(খ) উপরোক্ত কর-খাজনা ছাড়া প্রমোদকর ছুটি, বাজার, সেতু ও পুকুর বাদ টোল আদায় করা হইবে এবং উহা বাংলা দেশ সরকারের একাউন্টে জমা হইবে।
(গ) নগরশুল্কসহ সকল স্থানীয় কর প্রদান করিতে হইবে।
(ঘ) কাষ্টমস ডিউটি : এক্সাইজ ডিউটি, সেলস ট্যাক্সসহ সকল অপ্রত্যক্ষ কেন্দ্রীয় কর- যা আগে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক আদায় করা হইত তা এক্ষণে আদায়কার কর্তৃপক্ষ আদায় করিবেন : কিন্তু উহা কেন্দ্রীয় সরকারের একাউন্টে জমা; ট্রান্সফার বা রেমিট হইবে না। এইভাবে সংগৃহীত অর্থ ইষ্টার্ণ মার্কেন্টাইল ব্যাঙ্ক লিঃ ও ইষ্টার্ণ ব্যাংকিং কর্পোরেশন লিঃ-এ ‘বিশেষ একাউন্টে’ জমা দিতে হইবে। এই ব্যাপারে যে নির্দেশ দেওয়া হইবে ব্যাঙ্কগুলি সেসব নির্দেশ অনুসরণ করিবেন। সকল, আদায়কারী কর্তৃপক্ষ এই সকল নির্দেশ এবং ভবিষ্যতে যে সব নির্দেশ দেওয়া হইবে সেগুলি বাস্তবায়ন করিবেন।
(ঙ) আয়করসহ প্রত্যক্ষ কেন্দ্রীয় করসমূহ পুনরায় নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত আদায় করা হইবে না। 

তিনি কি চান
*এক পাকিস্তান * দুই অঞ্চলে দুই দলের হাতে ক্ষমতা, আর * একটি ‘স্বীকৃত ফর্মুলা’

পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান জুলফিকার আলী ভুট্টো পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলগুলির নিকট ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রস্তাব দিয়াছেন।
আজ বিকালে করাচীর নিশতার পার্কের এক জনসভায় তিনি বলেন যে, আওয়ামী লীগ প্রধানের নিকট তিনি সম্প্রতি যে তারবার্তা প্রেরণ করেন, পশ্চিম পাকিস্তানী জনসাধারণের পক্ষ হইতেই তিনি তাহা করিয়াছিলেন। পশ্চিম পাকিস্তানীরা চায় যে, সংখ্যাগরিষ্ঠ দুইটি দলই একত্রে মিলিয়া কাজ করুক। তিনি পশ্চিম পাকিস্তানের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের সহিত ‘সংলাপ’ শুরু করার জন্য শেখ মুজিবের প্রতি আহ্বান জানাইয়া বলেন, শাসনতান্ত্রিক প্রশ্নে এখনও একটা স্বীকৃত ফর্মুলা উদ্ভাবনের সময় রহিয়াছে। তাহার দল এক পাকিস্তানকে সুখী ও সমৃদ্ধ করিয়া গড়িয়া তুলিতে চায়।
আওয়ামী লীগের ৬-দফা কর্মসূচী সম্পর্কে তিনি বলেন যে, তিনি ইতিপূর্বেই ইহার ৩টি দফা মানিয়া লইয়াছেন, এবং আলোচনার মাধ্যমে অন্য ২টি দফার ফয়সালা করা যাইবে এবং বাকী ১টি দফা সম্পর্কেও হয়ত সীমাংসায় পৌঁছান সম্ভব হইবে।
তিনি বলেন যে, ইতিপূর্বে ৩রা মার্চ জাতীয় পরিষদের অধিবেশনের তারিখ নির্দিষ্ট করার সময় তাদের দলের সহিত পরামর্শ করা হয় নাই। ইহার পর তাহার দল শুধু এই অধিবেশন স্থগিত রাখারই পরামর্শ দেয় নাই, তাহারা শাসনতন্ত্র রচনার ব্যাপারে ১২০ দিনের মেয়াদ তুলিয়া দেওয়ার জন্যও প্রস্তাব দিয়াছিল। সর্বসম্মত ফর্মুলার অভাবে পরিষদ ইহার ১২০ দিনের মেয়াদের মধ্যে আরদ্ধ কার্য সম্পাদন করিতে পারিত না এবং ফলে ইহা (পরিষদ) ভাঙ্গিয়া যাইত।

নিজের বেলায় যা সত্য অন্যের বেলা নয়
জনাব ভুট্টো বলেন, পরিষদের মধ্যেই যদি সব কিছু সম্পর্কে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা যাইবে, তাহা হাইলে পরিষদের অধিবেশনে যোগদানের ব্যাপারে কোন দল কর্তৃক পূর্বশর্ত আরোপের কি যৌক্তিকতা থাকিতে পারে?
তিনি অভিমত প্রকাশ করেন যে, ৬-দফার মাধ্যমে আওয়ামী লীগ প্রকৃত প্রস্তাবে পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতাই দাবী করিতেছে। বর্তমান সংকটের জন্য তাহাকে যাহারা দাবী করিতেছেন, জনাব ভুট্টো তাহাদের কঠোর সমালোচনা করেন এবং বলেন যে, পশ্চিম পাকিস্তানের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে এখানকার লোকদের কথা তাহার পার্টিকে চিন্তা করিতে হইবে বৈকি।

লেখকঃ মোহাম্মদ ওমর ফারুক দেওয়ান, পরিচালক, প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি)।


শেখ মুজিবের উপর ভরসা রাখুন, অবিলম্বে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন

দোষ করিল লাহোর আর বুলেট বর্ষিত হইল ঢাকায়

১৯৭১ সালের ১২ মার্চ : কুর্মিটোলা মার্শাল ল’ অফিস ছাড়া কোথাও পাকিস্তানী পতাকা ওড়ে নাই

বিদেশী সাংবাদিকদের প্রতি শেখ মুজিবের আহবান

পূর্বাঞ্চলে যে ‘ভয়াবহ অবস্থা’ চলিতেছে, পশ্চিম পাকিস্তানের লোকেরা তাহা জানে না

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের শর্ত মানিয়া লও

এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম : বঙ্গবন্ধু

ঢাকার রাজপথে স্বাধিকারকামী জনতার দৃপ্ত পদচারণা কন্ঠে কন্ঠে ক্ষুব্ধ গর্জন, প্রাণে প্রাণে সংগ্রামী শপথ

ঢাকার উত্তপ্ত রাজপথ, নানা জল্পনা-কল্পনা ও রাজনৈতিক ধোঁয়াশায় কাটে ৬ই মার্চ

দেশে যদি বিপ্লবের প্রয়োজন দেখা দেয়, তবে সে বিপ্লবের ডাক আমিই দিব, আমিও কম বিপ্লবী নই: বঙ্গবন্ধু

দানবের সঙ্গে সংগ্রামের জন্য যেকোন পরিণতিকে মাথা পাতিয়া বরণের জন্য আমরা প্রস্তুত : বঙ্গবন্ধু

৩ হইতে ৬ মার্চ প্রতিদিন সকাল ৬টা হইতে দুপুর ২টা পর্যন্ত সমগ্র প্রদেশে হরতাল পালন করুন : বঙ্গবন্ধু

২ মার্চ বঙ্গবন্ধুর সাংবাদিক সম্মেলন

আসুন, পরিষদেই সমাধান খোঁজা হইবে : বঙ্গবন্ধু

প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও মর্যাদা : প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ

ঘুরে আসুন সাজেক, খেয়াল রাখবেন কিছু বিষয়ে

নারী ও শিশু নির্যাতন: সভ্য সমাজের বর্বর বার্তা


image
image

রিলেটেড নিউজ

Los Angeles

০০:২৭, মে ১, ২০২১

Knowledge rich বনাম Knowledge poor 


Los Angeles

০০:১৭, এপ্রিল ১৭, ২০২১

১৯৭১ সালের ১৭ই এপ্রিল ও মুজিব নগর সরকার- একটি সাক্ষাৎকার


Los Angeles

২৩:০২, এপ্রিল ১৩, ২০২১

পবিত্র রমযান হোক করোনা থেকে পরিত্রাণের মাস


Los Angeles

২৩:৩৯, মার্চ ৩০, ২০২১

১৯৭১ সালের মার্চ মাসের পরিস্থিতি নিয়ে বিদেশি গণমাধ্যম-২


Los Angeles

০০:৩৫, মার্চ ৩০, ২০২১

১৯৭১ সালের মার্চ মাসের পরিস্থিতি নিয়ে বিদেশি গণমাধ্যম


Los Angeles

০০:২৪, মার্চ ৩০, ২০২১

বঙ্গবন্ধুর অহিংস-অসহযোগ আন্দোলন


Los Angeles

১৪:৩২, মার্চ ২৭, ২০২১

ঢাকার প্রতিরোধঃ রাজারবাগ


image
image
image

আরও পড়ুন

Los Angeles

১৩:৫৫, জুন ১৫, ২০২১

দোহাজারীতে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ আটক-৩, কাভার্ডভ্যান জব্দ


Los Angeles

১৩:৪৭, জুন ১৫, ২০২১

আউশে আশাবাদী আনোয়ারার চাষীরা


Los Angeles

১৬:২৫, জুন ১৪, ২০২১

রাউজানে মাদকসহ আটক-১